—–শিক্ষনিয় একটা আখ্যান—— এক ব্যাঙের গল্প

—–শিক্ষনিয় একটা আখ্যান—–

FB_IMG_15095113371954001

 

এক সময় এক গুরু গৃহে কিছু শিষ্যকে আশ্রম আচার্য গুরুদেব হাসতে হাসতে বললেন, “তোমাদের আজকে এক ব্যাঙের গল্প শোনাবো! সবাই মনযোগ দিয়ে শোনো।

.
একবার 20 টা ব্যাঙের একটা দল লাফিয়ে লাফিয়ে কোথায়ও একটা যাচ্ছিল হঠাৎ একটা কুয়া চলে আসায় দেখতে না পেয়ে পাঁচটা ব্যাঙ তার মধ্যে পরে যায়! কিন্তু পড়ে গিয়েও তারা উপরে উঠার চেষ্টা করে! এই দেখে উপরের ব্যাঙ গুলো বলে, ‘এটাতো অনেক গভীর! এখান থেকে তোমাদের উপরে ওঠা অসম্ভব! এখন থেকে তোমাদের এখানেই থাকতে হবে।’
.
এই শুনে প্রথম ব্যাঙটা আর পাঁচ মিনিট পর্যন্ত চেষ্টা করে হাল ছেড়ে দেই। দ্বিতীয় ব্যাঙটা 10 মিনিট, তৃতীয় ব্যাঙটা 15 মিনিট আর চতুর্থ ব্যাঙটা 20 মিনিট চেষ্টা করার পর হাল ছেড়ে দেই কিন্তু পাঁচ নম্বর ব্যাঙটা উপরে ওঠা থামায় না সে চেষ্টা করতেই থাকে। উপরের ব্যাঙ গুলো বলতেই থাকে, ‘কি করছো তুমি এখান থেকে উপরে উঠতে পারবে না, এতো উপরে ওঠা কিছুতেই সম্ভব নয়। ওদের দেখো ওরা ঠিক বুঝে গিয়েছে তাই ওরা আর চেষ্টা করছে না। তোমাদের এইবার থেকে এখানেই থাকতে হবে। তুমি বৃথা চেষ্টা করছো।’
.
কিন্তু পাঁচ নম্বর ব্যাঙ টা থামে না। 1 ঘন্টা, 2 ঘন্টা সে চেষ্টা করতেই থাকে, করতেই থাকে আর ধিরে ধিরে এক সময় সে উপরে উঠে যায়। সবাই অবাক হয়ে যায় কি করে সম্ভব হলো এটা? আর কিছুক্ষণ যাচাই করারপর দেখা যায় আসলে যে ব্যঙ্গটা উপরে ওঠে এসেছে সে আসলো কি ছিলো জানো? সে কালা ছিলো, কানে না শোনার কারণে সে তাদের চিৎকারকে ভাবচ্ছিলো উপরের সবাই মিলে তাকে ওঠার অনুপ্ররেণা দিচ্ছে বলছে, ‘ওঠো আর একটু চেষ্টা করো তুমি পারবে উঠতে।’
.
আর ঠিক এমনই আমাদের সাথেও ঘটে। আমাদের আশেপাশে এমন অনেক লোক আছে তাই না? যারা সর্বদা আমাদের শ্মরণ করায় যে, আমাদের দ্বারা নাকি কিছুই হবে না! এখন আমাদের ঠিক করতে হবে, আমরা কি করবো। প্রথম চারটা ব্যাঙের মতো অন্যের কথাই বিশ্বাস করে চেষ্টায় করবো না নাকি পাঁচ নম্বর ব্যঙ্গ মতো?
.
অর্থাৎ যদি সফল হতে চাও তাহলে যে যাই বলুক, নিজেকে পজিটিভিটি দাও যে তুমি পারবে! বাইরের লোকতো তোমাকে ভোরে ভোরে নেগেটিভিটি দেবার জন্য বসে আছে। এখন তুমিও যদি নিজেকে নিজে নেগেটিভিটি দিতে থাকো তাহলে তোমার কি মনে হয়, তুমি কখনও সফল হতে পারবে কি!”
.
তাই আমাদের লক্ষ স্থির রেখে, ভগবদ্ পথে একনিষ্ঠ হয়ে চলতে হবে। নিশ্চয়ই আমরা সফল হয়ে শ্রীহরির পাদপদ্মের কৃপা লাভ করতে সক্ষম হবো, হবোই।

“হরে কৃষ্ণ হরে কৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে
হরে রাম হরে রাম রাম রাম হরে হরে!!

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন

মন্তব্য করুন

সাবমিট

© বাংলাদেশ সনাতনী সেবক সংঘ | সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত

Powered by Smart Technology