গৃহস্থের অবশ্যই পালনীয় কতিপয় সাধারণ কর্তব্য ও আচার

গৃহস্থের অবশ্যই পালনীয় কতিপয় সাধারণ কর্তব্য ও আচার

FB_IMG_15198038031620514 (1)

(সাধারণ গৃহস্থ ভক্তগণের উদ্দেশ্যে নিম্নলিখিত আচার সমূহ শাস্ত্রে উল্লিখিত হইয়াছে। শ্রীহরিভক্তিবিলাসধৃত বিষ্ণুপুরাণাদি শাস্ত্র-বচন সমূহ হইতে সংগৃহীত হইল।)

১. দেবতা, গো, ব্রাহ্মণ ও সিদ্ধগণকে এবং গুরুবর্গকে অর্চনা করিবে।
২. সর্বদা পবিত্র বস্ত্র পরিধান করিবে,
৩. পরিচ্ছন্ন কেশ ও মনোহর বেশ ধারণ করিবে;কিঞ্চিৎ মাত্রও পরধন হরণ করিবে না;
৪. অল্প পরিমাণেও অপ্রিয় বাক্য বলিবে না,
৫. মিথ্যা বাক্য প্রিয় হলেও বলিবে না,
৬. পরের দোষ কীর্তন করিবে না;
৭. কাহারও সহিত শত্রুতা করিবে না;
৮. ভগ্ন যানে আরোহন করিবে না;
৯. বিদ্বেষপ্রাপ্ত, পতিত, উন্মত্ত, বহুলোকের সহিত শত্রুতা-বিশিষ্ট, অতিশয় কীটতুল্য পীড়ক, অসতী, অসতীর পতি, মিথ্যাবাদী, অতিশয় ব্যয়শীল, পরদার-রত ও শঠ এই সকল মনুষ্যের সহিত মিত্রতা করিবে না।
১০. দন্তে দন্তে ঘর্ষণ করিবে না;
১১. মুখ আবরণ না করিয়া হাই তুলিবে না;
১২. উচ্চহাস্য করিবে না;
১৩. শব্দ সহকারে অধোবায়ু ত্যাগ করিবে না;
১৪. নখ দ্বারা ভূমি লিখন করিবে না;
১৫. দন্ত দ্বারা শ্মশ্রু বা নখ দ্বারা লোম ছেদন করিবে না;
১৬. অমেধ্য ও অমঙ্গল দ্রব্যের প্রতি দৃষ্টিপাত করিবে না;
১৭. শব দেখিয়া হুঙ্কার করিবে না;
১৮. শব গন্ধকে নিন্দা করিবে না।
১৯. পূজ্যদেব, ব্রাহ্মণ ও প্রদীপের ছায়া অতিক্রম করিবে না;
২০. অতিশয় জাগরণ, অতিশয় নিদ্রা, অতি উচ্চ আসন, অধিকক্ষণ শয্যায় অবস্থান ও অতিশয় ব্যায়াম বর্জন করিবে;
২১. দংষ্ট্রী ও শৃঙ্গী জন্তুকে দূরে বর্জন করিবে।
২২. নগ্ন হইয়া স্নান ও শয়ন করিবে না বা কিছু স্পর্শ করিবে না।
২৩. মুক্ত হস্তে আচমন ও দেবাদির পূজা করিবে না;
২৪. স্নানের পর আর্দ্র কেশ কম্পিত করিবে না;
২৫. দাঁড়াইয়া আচমন করিবে না;
২৬. পদের দ্বারা পদ আক্রমণ করিবে না;
২৭. পূজ্যগণের সম্মুখে পদ প্রসারণ করিবে না;
২৮. দণ্ডায়মান হইয়া মল-মূত্র ত্যাগ করিবে না।
২৯. শ্লেষ্মা, বিষ্ঠা মূত্র ও রক্ত কদাচ লঙ্ঘন করিবে না;
৩০. ভোজনকালে থুথু ও শ্লেষ্মা ত্যাগ করিবে না;
৩১ স্ত্রীলোকগণকে অপমান ও বিশ্বাস করিবে না;
৩২. স্ত্রী লোকদিগের প্রতি ঈর্ষা করিবে না;
৩৩. বৃষ্টি ও রৌদ্রে ছত্র ধারণ করিবে;
৩৪. শরীর রক্ষার্থে সর্বদা পাদুকা পরিধান করিয়া গমন করিবে;
৩৫. উর্ধ্বে, বক্রভাবে ও দূরে নিরীক্ষণ করিতে করিতে ভ্রমণ করিবে না;
৩৬. প্রিয় বাক্য অহিতকর হইলে তাহা বলিবে না;
৩৭. হিতকর বাক্য অপ্রিয় হইলেও বলিবে;
৩৮. শ্রাদ্ধ, ব্রত, জপ, দান, দেবতার্চন, যজ্ঞ ও তর্পণকারীকে অভিবাদন করিবে না।
৩৯. অসৎ শাস্ত্র, অসতের সহিত বাস ও অসৎ-সেবা বর্জন করিবে।
৪০. রজস্বলা স্ত্রীর দর্শন, স্পর্শন ও তাহার সহিত সম্ভাষণ বর্জন করিবে।
৪১. ব্রাহ্মণ, ক্ষুধাদি-পীড়িত, রুগ্ন, অধিক বিদ্বান, অন্তঃসত্তা, ভার বাহক ও বৈষ্ণব এই সকল লোককে পথ দিবে।
৪২. মূর্খ, উম্মত্ত, বিপদগ্রস্ত, বিরূপ, ধূর্ত, অঙ্গহীন ও অধম এই সকল লোককে উপহাস করিবে না বা ইহাদের প্রতি দোষারোপ করিবে না।
৪৩. পরকে দণ্ড দিবে না;
৪৪. পুত্র ও শিষ্যকে শিক্ষার্থ দণ্ড দিবে।
৪৫. অঙ্গুলি দ্বারা জলপান করিবে না;
৪৬. পাকার্থ অগ্নিতে মুখ দ্বারা ফুঁ দিবে না।
৪৭. হস্ত ও পদ দ্বারা জলে আঘাত করিবে না;
৪৮. ইষ্টক ও ফল দ্বারা ফল আঘাত করিবে না;
৪৯. ম্লেচ্ছ-ভাষা শিক্ষা করিবে না;
৫০ চরণ দ্বারা আসন আকর্ষণ করিবে না;
৫১. ক্রোড়ে ভক্ষ্য দ্রব্য রাখিয়া ভক্ষণ করিবে না।
৫২. পদ প্রক্ষালন করিবে না;
৫৩. অগ্নিতে পদদ্বয় উত্তপ্ত করিবে না;
৫৪. কাংস্য পাত্রে পা দিবে না;
৫৫. জলে নিষ্ঠীবন (অধবায়ু) ত্যাগ করিবে না;
৫৬. উচ্ছিষ্ট হইয়া গো, ব্রাহ্মণ ও অগ্নি স্পর্শ করিবে না;
৫৭. অগ্নি লঙ্ঘন করিবে না।
৫৮. পশু, সর্প ও পক্ষিগণকে পরস্পর যুদ্ধ করাইবে না;
৫৯. বস্ত্র দ্বারা বীজন করিবে না;
৬০. দেব মন্দিরে শয়ন করিবে না;
৬১.অগ্নি, গো, এবং ব্রাহ্মণাদির মধ্যে দিয়া গমন করিবে না;
৬২. দুগ্ধের সহিত লবণ ভক্ষণ করিবে না।
(ইতি সংক্ষিপ্ত সাধারণ কর্তব্য ও আচার সম্পূর্ণ)

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন

মন্তব্য করুন

সাবমিট

© বাংলাদেশ সনাতনী সেবক সংঘ | সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত

Powered by Smart Technology